Home Economy ২০৩০ সালের মধ্যে বাংলাদেশ হবে ভারতের চেয়ে ধনী!

২০৩০ সালের মধ্যে বাংলাদেশ হবে ভারতের চেয়ে ধনী!

55
0
ছবি সংগৃহীত

স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড-এর এক গবেষণা প্রতিবেদন অনুযায়ী ২০৩০ সালের মধ্যে ভারতের চেয়ে ধনী দেশে রূপান্তরিত হবে বাংলাদেশ। গবেষণায় বলা হয়,ওই সময়ে ভারতীয়দের চেয়ে বাংলাদেশিদের মাথাপিছু আয় ৩০০ ডলার বেড়ে যাবে। সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গ গবেষণা প্রতিবেদনের উদ্ধৃতি দিয়ে জানিয়েছে, অর্থনীতির বিচারে আগামী দশক হবে এশিয়ার এবং শীর্ষ ৭ অর্থনীতির দেশের মধ্যে থাকবে মহাদেশের ৫টি দেশ: বাংলাদেশ, ভারত, মিয়ানমার, ভিয়েতনাম ও ফিলিপাইন। কেননা এই ৫ দেশের প্রবৃদ্ধি ৭ শতাংশে স্থিতিশীল থাকবে।

স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ডের ভারতীয় প্রধান মধুর ঝাঁ ও বিশ্ব-অর্থনীতি বিভাগের প্রধান ডেভিন মান গবেষণা প্রতিবেদনটি তুলে ধরেন। ২০৩০ সালের মধ্যে এশিয়া অঞ্চলে বিশ্বের মোট জনসংখ্যার পাঁচ ভাগের এক ভাগেরই বসবাস হবে । এই সুবিধা ভারতের জন্য আশীর্বাদ হয়ে আসবে। অন্যদিকে বাংলাদেশেও স্বাস্থ্য ও শিক্ষাখাতের বিনিয়োগের গতি বাড়বে। গবেষণা অনুযায়ী, বাংলাদেশিরা  ২০৩০ সালের মধ্যে ভারতীয়দের চেয়ে আর্থিকভাবে স্থিতিশীল অবস্থায় থাকবে । সেসময় ভারতের মাথাপিছু দাঁড়াবে ৫ হাজার ৪০০ ডলারে,বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় আরও ৩০০ ডলার বেড়ে দাঁড়াবে ৫ হাজার ৭০০ ডলার।

স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড প্রথম ২০১০ সালে যখন এই গবেষণা শুরু করে,তখন থেকেই এশীয় আধিপত্য শনাক্ত করতে সক্ষম হন তারা। ২০১০ সালে এশিয়া ও আফ্রিকার ১০ দেশ: চীন, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, বাংলাদেশ, ভিয়েতনাম, নাইজেরিয়া, ইথিওপিয়া, তাঞ্জানিয়া, উগান্ডা ও মোজাম্বিকের মধ্যে কারা শীর্ষ ৭ অবস্থান দখল করবে, বিষয়টা নিয়ে দ্বিধাবিভক্ত ছিলেন গবেষক দলের সদস্যরা।

অন্যদিকে এই তালিকায় চীনের অনুপস্থিতিতে টের পাওয়া যাচ্ছে, বিগত চার দশক ধরেই আধিপত্য বজায় রাখলেও অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে তাদের গতি কমেছে। চীনের মাথাপিছু আয়ও স্থিতিশীল নয়। স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড-এর গবেষণা বলছে, বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির এই দেশটির প্রবৃদ্ধি ২০৩০ সালে গিয়ে দাঁড়াবে ৫ দশমিক ৫ শতাংশে। আফ্রিকার ইথিওপিয়া ও আইভরি কোস্টও ২০৩০ সাল নাগাদ ৭ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জনকারী দেশের তালিকায় স্থান পেতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here