web analytics
Lifestyle

যা জানলে মাছ খাওয়ার আগ্রহ বাড়বে

মাছ শরীরের জন্য অনেক উপকারী। বিশ্ব জুড়ে যে খাবারটি সবচেয়ে বেশি খাওয়া হয়, তা হল মাছ। মাছ খেতে আমরা প্রায় প্রত্যেকেই ভালোবাসি। মাছে প্রচুর পরিমানে খনিজ এবং তেল থাকে। বিশেষ করে সামুদ্রিক মাছে।

আপনি জেনে অবাক হবেন যে সামুদ্রিক মাছকে বলা হয় ব্রেন ফুড। সপ্তাহে একদিন যদি কেই সামুদ্রিক মাছ খায় তবে তার স্মৃতিশক্তি, নতুন কিছু শেখা ও মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বাড়ে। এছাড়া ছোট মাছ তৈলাক্ত মাছ খেলে মস্তিষ্ক উন্নতমানের হয়। তাই নিয়মিত পুকুর বা নদীর মাছ খাওয়ার পাশাপাশি সামুদ্রিক মাছ খাওয়া ভালো। এছাড়া ত্বক-চুলের উজ্জ্বলতা বাড়ায় ওমেগা থ্রি।

প্রোটিন প্রচুর থাকে বলে খেলে পেট দীর্ঘ সময় ভরা থাকে, রক্তে চর্বির মাত্রা কমিয়ে ইসকিমিক হার্ট অ্যাটাক ঠেকাতেও সে সিদ্ধহস্ত, ওমেগা থ্রি মন ভালো রাখে, মানসিক চাপ কমায়। তাই হতাশাগ্রস্ত রোগীদের ওষুধের সঙ্গে মাছ খেতে বলেন ডাক্তারা। এছাড়া স্ট্রেস-টেনশন-ডিপ্রেসন কম থাকলে হার্টের স্বাস্থ্যও ভালো

প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় কোনো না কোনো মাছ রাখা দরকার। কেননা নানা রকমের মাছে রয়েছে হাজারো খাদ্যগুণ। নিয়মিত মাছ খেলে মস্তিষ্কের বিকাশ ভালো হয়। এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, যাঁরা নিয়মিত মাছ খান, তাঁদের ক্ষেত্রে ১০ শতাংশ হারে কমে যায় মস্তিষ্কের বয়স। এ ছাড়া ছোটবেলা থেকেই মাছ খেলে শিশুদের শারীরিক বৃদ্ধি ভালো হয় বলে প্রচলিত আছে।

আসুন জেনে নেই, মাছ খেলে আমাদের শরীরের কী কী উপকার হয়।

* শিশুদের হাঁপানি হওয়ার আশংকা কমে যায় ছোট বয়স থেকে মাছ খাওয়ার অভ্যাস থাকলে।
* আমাদের চোখ এবং মস্তিষ্কের জন্য খুবই উপকারী কারন মাছে প্রচুর পরিমানে ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড থাকে। মাছে চোখের রেটিনা খুব ভালো থাকে।
* হাঁপানি এবং প্রস্টেট ক্যানসারের হাত থেকে রক্ষা পেতে নিয়মিত কিংবা সপ্তাহে ২ থেকে ৩ দিন মাছ অবশ্যই খাওয়া উচিত।
* মাছে থাকা ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড ক্যানসারের সম্ভাবনা কমিয়ে দেয় ৩০ থেকে ৫০ শতাংশ। বিশেষ করে ওরাল ক্যাভিটি, কোলন ক্যানসার, স্তন ক্যানসার, ওভারি ক্যানসার এবং প্রস্টেট ক্যানসারের সম্ভাবনা খুবই কমিয়ে দেয়।
* রক্ত জমাট বাঁধা রোধ করে, উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে। তাই হৃদরোগ এবং স্ট্রোকের সম্ভাবনা কমাতে সপ্তাহে অন্তত একদিন মাছ খাওয়া উচিৎ।
* অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় কোন নারী যদি নিয়মিত মাছ খান, তাহলে তাঁদের প্রি-ম্যাচিওর সন্তান হওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়।

মাছ খাওয়া ভালো কি খারাপ তা না ভেবেই আমরা মাছ খাই। মাছের আছে নানাবিধ পুষ্টিগুণ। আমরা তা জানার চেষ্টা করবো এবং তাতে মাছ খাওয়ার আগ্রহ আমাদের আরও বাড়বে।

ছবিঃ সংগ্রহীত
Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close