web analytics
Sports

মাশরাফির চোটে নতুন শঙ্কা বিশ্বকাপের আগে

বিশ্বকাপের আগে পাকিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশের প্রস্তুতি ম্যাচ ভেসে গিয়েছিল বৃষ্টিতে এবং ভারতের বিপক্ষে মঙ্গলবারের প্রস্তুতি ম্যাচটি তাই ছিল শেষবারের মতো নিজেদের ঝালিয়ে নেয়ার ম্যাচ। সে ম্যাচে ওপেনার তামিম ইকবাল ছাড়া মাঠে নেমেছেন স্কোয়াডের প্রায় সব প্লেয়ার তবে শুরুতে খেলার কথা না থাকলেও নেমেছিলেন অধিনায়ক মাশরাফিও।

মঙ্গলবার প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে নেমেই চোট লাগে মাশরাফির। ব্যক্তিগত ছয় ওভারের সময়ে বা পায়ের হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট পান তিনি এবং মাঠের বাইরে চলে যান ওই ওভারটা শেষ করেই।

গত ত্রিদেশীয় সিরিজের সময় মাশরাফি পেয়েছিলেন ডান পায়ের হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট। আর এবার অন্য পায়ের হ্যামস্ট্রিংয়ের চোট। বিশ্বকাপের আগে টাইগার সমর্থকদের জন্য যেটা অনেক বড় দুঃসংবাদ।

মাঠে নামলেও মাশরাফির পরিকল্পনা ছিল সর্বোচ্চ চার অথবা পাঁচ ওভার করার কিন্তু রোহিত শর্মা ও বিরাট কোহলির দ্রুত রান তোলায় লাগাম টানতেই ষষ্ঠ ওভারে বোলিংয়ে এসেছিলেন তিনি। কিন্তু শেষ ওভারের বোলিংয়ে এসেই চোট লাগে তাঁর।

দেশের একটি সংবাদমাধ্যমের সাথে আলাপ করে মাশরাফি বিন মুর্তজা বলেন, ‘বেশিরভাগ সময়ে আমি প্রথম এক-দুই ওভারের মধ্যে সমস্যা অনুভব করি কিন্তু তখন যদি কিছু না হয়, তবে পরে আর সমস্যা হয় না। আজও (মঙ্গলবার) হয়নি। তবে ষষ্ঠ ওভারে এসে হ্যামস্ট্রিংয়ে টান পড়ে আর আমি চার অথবা পাঁচ ওভার করেই আর বল করতাম না। কিন্তু সেই সময়ে রোহিত ও কোহলি দুজনই খুব দ্রুত রান তুলছিল। আমার মনে হয়েছে, এই পরিস্থিতিতে বোলিং প্র্যাকটিসটা করা দরকার।’

এরকম ইনজুরি হলে সাধারণত পাঁচ থেকে ছয় দিনের বিশ্রাম দেন ফিজিওরা কিন্তু বিশ্বকাপে বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ ২ জুন দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে। হাতে বিশ্রামের জন্য তিনদিনের মতো সময় থাকলেও মাশরাফি চাইছেন প্রথম ম্যাচ থেকেই তিনি খেলবেন।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close