web analytics
Sports

মাঠের বাইরে থেকেও নিষিদ্ধ হওয়ার আশংকা নেইমারের

মাঠে নেইমারের মেজাজ হারিয়ে ফেলা নতুন কিছু নয়। অনেকবারই রাগের বশে অনেক কাণ্ড ঘটিয়েছেন, যার জন্য নিষেধাজ্ঞাও ভোগ করেছেন। তবে এবার মাঠে না খেলেও নিষেধাজ্ঞায় পড়তে পারেন ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার।

খাল কেটে কুমির আনা বলতে কী বোঝায়, এখন হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছেন নেইমার। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে হেরে মেজাজ হারিয়ে ইনস্টাগ্রামে উয়েফাকে গালাগাল করেছিলেন পিএসজি তারকা। উয়েফার চোখ এড়ায়নি বিষয়টি। ব্রাজিল তারকাকে এখন শাস্তি দেওয়ার কথা ভাবছে ইউরোপিয়ান ফুটবলের এই নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

চোটের কারণে তিনি দলে নেই। তবে প্যারিস সেন্ট জার্মেই (পিএসজি) নেইমারকে ছাড়াই তৈরি করেছিল চ্যাম্পিয়নস লিগে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠার সুযোগ। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে তাদেরই মাঠে ২-০ ব্যবধানে জিতেছিল।

ফিরতি লেগে ২-১ হলেও শেষ আটে উঠে যেত পিএসজি। পার্ক ডি প্রিন্সেসে দলের খেলা দেখতে তাই গ্যালারিতে উপস্থিত হয়েছিলেন নেইমার। কিন্তু মাঠে বসে দেখলেন শেষ মুহূর্তের পেনাল্টিতে পিএসজিকে বাদ করে দিয়েছে ম্যানইউ।

রেফারির ওই শেষ সময়ের সিদ্ধান্ত নিয়ে কিছুটা বিতর্ক ছিল। তাই মেজাজ ধরে রাখতে পারেননি নেইমার। গ্যালারির মধ্যেই তাকে চিৎকার চেঁচামেচি করতে দেখা যায়। পরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রামে তো রীতিমত গালাগালই করেন রেফারি আর ইউরোপিয়ান ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা উয়েফাকে।

ইনস্টাগ্রামের পোস্টে নেইমার ক্ষোভ প্রকাশ করে লিখেন, ‘এটা আসলেই লজ্জাজনক! উয়েফা এমন চারজনকে নিয়োগ দিয়েছে, যারা স্লো মোশনে ভিআরের সিদ্ধান্ত কিভাবে নিতে হয় তার কিছুই জানে না। এটা কোনোভাবেই হ্যান্ডবল ছিল না। পেছনে আপনি কিভাবে হ্যান্ডবল দেন? আহ।’

এমন পোস্টে স্পষ্টতই উয়েফার আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন নেইমার। এতে সামনের মৌসুমের চ্যাম্পিয়নস লিগে এক থেকে তিন ম্যাচ পর্যন্ত নিষিদ্ধ হতে পারেন তিনি। ২৭ মার্চ উয়েফার মিটিং আছে। সেখানেই হয়তো সিদ্ধান্ত হবে, নেইমারের জন্য কি শাস্তি অপেক্ষা করছে।

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close