web analytics
international

‘ভয়াবহ যুদ্ধ বেঁধে যেতে পারে’

ইরানের এলিট কুদস বাহিনীর প্রধান জেনারেল কাসেম সোলেইমানিকে হত্যা করার পরিণামে ভয়াবহ যুদ্ধ বেঁধে যেতে পারে। ইরাকের প্রধানমন্ত্রী আদিল আবদুল-মাহদি যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি হুশিয়ারি উচ্চারণ করে এ মন্তব্য করেছেন।

শুক্রবার ইরাকের রাজধানী বাগদাদের একটি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিমান হামলায় ইরানের বিপ্লবী এলিট কুদস বাহিনীর প্রধান জেনারেল কাসেম সোলেইমানি ও ইরান সমর্থিত পপুলরার মবিলাইজেশন ফোর্সেসের (পিএমএফ) উপ-প্রধান আবু মাহদি আল-মুহান্দিসসহ বেশ কয়েকজন নিহত হয়েছেন।

আদিল আবদুল-মাহদি এ হামলাকে ইরাকের বিরুদ্ধে আগ্রাসন হিসেবে উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেন, ইরাকি সামরিক কমান্ডারকে সরকারি ঘাঁটিতে হত্যা করা দেশের বিরুদ্ধে আগ্রাসন ছাড়া আর কিছু নয়। এ আগ্রাসন ইরাকের রাষ্ট্র, সরকার এবং জনগণের বিরুদ্ধে চালানো হয়েছে।

এছাড়া ইরাকের প্রধানমন্ত্রী এ হামলার মধ্য দিয়ে ইরাকে মোতায়েন মার্কিন সেনারা দেশটিতে অবস্থানের শর্ত লঙ্ঘন করেছে বলে উল্লেখ করেন। সেইসঙ্গে মার্কিন সেনাদের ভবিষ্যৎ নির্ধারণের জন্য ইরাকি সংসদের বৈঠকে বসার আহ্বান করেন।

এদিকে জেনারেল কাসেম সোলেইমানিকে হত্যার প্রতিশোধের হুঙ্কার দিয়েছে ইরান। দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদ যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ‘কঠোর প্রতিশোধ’ নেয়ার অঙ্গীকার করেছে।

ইরানের সংবাদ মাধ্যমে দেশটির নিরাপত্তা পরিষদ আজ এক বিবৃতিতে জানায়, ‘এমন দুঃসাহসিক সন্ত্রাসীমূলক কাজের জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী থাকতে হবে।’

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, পশ্চিম এশিয়া অঞ্চলে এটি যুক্তরাষ্ট্রের বিশাল কৌশলগত ভুল, এবং যুক্তরাষ্ট্র সহজেই এর পরিণতি থেকে পাড় পাবে না।

তবে যুক্তরাষ্ট্রের ওপর কী ধরণের প্রতিশোধ নিবে তার বিস্তারিত কিছু জানায়নি ইরান। তবে যুক্তরাষ্ট্রকে কড়া মাশুল দিতে হবে বলে হুঙ্কার দেয় দেশটি।

আগামীকাল জেনারেল কাসেম সোলেইমানির জানাজা অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছে ইরান।

এদিকে মার্কিন বাহিনীর এমন হামলার কড়া নিন্দা জানিয়েছে রাশিয়াসহ বেশ কয়েকটি দেশ। বিবিসি, সিএনএন, পার্স টুডে।

/এসআর

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close