web analytics
BangladeshUpdate News

পিলখানায় শহীদ সেনাদের স্মরণে পুষ্পস্তবক-অর্পণ

পিলখানায় সীমান্ত’রক্ষা বাহিনীর সদর-দপ্তরে বিদ্রোহের মধ্যে নৃশংস হত্যা’যজ্ঞে নিহত সেনা কর্মকর্তাদের ফুলের-শ্রদ্ধায় স্মরণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে (২৫ ফেব্রুয়ারি) রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে তাদের সামরিক সচিবরা বনানীর সামরিক কবরস্থানে নিহত সেনা সদস্যদের কবরে পুষ্পস্তবক-অর্পণ করেন।

শহীদদের-কবরে রাষ্ট্রপতির পক্ষে তার সামরিক-সচিব মেজর জেনারেল এস এম সালাহ উদ্দিন ইসলাম, প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে তার সামরিক সচিব মেজর জেনারেল নকিব আহমেদ ফুল’দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। আরও শ্রদ্ধা জানান, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, সেনাবাহিনী-প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ, ভারপ্রাপ্ত নৌবাহিনী-প্রধান রিয়ার এডমিরাল এম আবু আশরাফ, বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের মহা-পরিচালক মেজর জেনারেল সাফিনুল ইসলাম।

ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো শেষে শহীদদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করে এক মিনিট নীরবতা-পালন করা হয়। এ’সময় সশস্ত্র-বাহিনীর সদস্যরা শহীদদের সম্মানে স্যালুট দেন। পরে শহীদদের আত্মার-মাগফিরাত কামনা করে দোয়া করা হয়। পিলখানা হত্যাকাণ্ডে-নিহত সেনা কর্মকর্তাদের স্বজনরাও বনানীর সামরিক কবরস্থানে এসেছিলেন। তবে তারা গণ-মাধ্যমের সামনে কথা বলেননি।

উল্লেখ্য যে, আজ ২৫ ফেব্রুয়ারি। পিলখানা ট্রাজেডির একযুগ পূর্ণ হয়েছে। ২০০৯ সালের এদিনে তৎকালীন বিডিআরের (বর্তমানে বিজিবি) সদর দপ্তর পিলখানায় সংঘটিত হয় বর্বরোচিত হত্যা’কাণ্ড। নির্দয় জওয়ানদের-গুলিতে ৫৭ সেনা কর্মকর্তার মৃত্যু হয়। ২৫ ও ২৬ ফেব্রুয়ারি দুইদিন’ব্যাপী চলা এ’বিদ্রোহে মোট প্রাণ-হারান ৭৪ জন। র’ক্তাক্ত সেই বিদ্রোহের-পর সীমান্ত’রক্ষা বাহিনী বিডিআরের নাম বদলে যায়, পরিবর্তন আসে পোশাকে। এ’বাহিনীর নাম এখন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ বা বিজিবি।

Tags

Related Articles

Back to top button
Close
Close