web analytics
Uncategorized

পর্যটন করপোরেশনের হোটেল-মোটেল এনজিওর কাছে ভাড়া

পর্যটক আকর্ষণে পিছিয়ে পড়ছে বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত কক্সবাজার। তবে পর্যটন কপোরেশনের মালিকানাধীন ৪টি হোটেল ও মোটেল এখন এনজিওর কাছে ভাড়া দেয়া। সংশ্লিষ্টদের অভিযোগ, পর্যটন করপোরেশনের উদাসীনতায় এই হাল। তবে এবারো নানা পরিকল্পনার কথা জানিয়েই দায় সারল সংস্থাটি।

বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত কক্সবাজার। ১২০ কিলোমিটার দীর্ঘ বালুকাময় সৈকতে ঢেউ আছড়ে পড়ছে বঙ্গোপসাগরের এবং পাশেই সবুজ পাহাড়। সাগর পাড়ের মনোরম পরিবেশে পর্যটকরা ছুটে আসেন সৈকতের এ শহরে। বিশেষ করে ছুটির দিনগুলোতে জড়ো হন লাখো পর্যটক।

কিন্তু এখনো পর্যটকদের জন্য পর্যাপ্ত সুযোগ-সুবিধা গড়ে ওঠেনি এই পর্যটন শহরে। পর্যটনকে এগিয়ে নিতে তৈরি করা পর্যটন করপোরেশনের চারটি হোটেল মোটেল গত দুই বছর ধরে ভাড়া দিয়ে রাখা হয়েছে এনজিওগুলোর কাছে এবং সংশ্লিষ্টদের অভিযোগ, পর্যটন শিল্প বিকাশে বাধা খোদ পর্যটন করপোরেশন।

সেই সঙ্গে সরকারি দপ্তরগুলোর সমন্বয়হীনতায় পিছিয়ে পড়ছে এ খাত। তবে বেসরকারিভাবে হোটেল মোটেল গড়ে উঠলেও বিনোদনের তেমন কোনো ব্যবস্থা নেই এখানে।

কক্সবাজারের হোটেল মালিক সমিতির মুখপাত্র আবু তালেব শাহ বলেন, পর্যটন করপোরেশন চাইলে অন্যান্যদের সহযোগিতায় কক্সবাজারকে পর্যটন নগরী হিসেবে গড়ে তোলা সম্ভব।

বরাবরের মতো পরিকল্পনার আশ্বাস দিয়েই পর্যটন করপোরেশনের দায় যেন শেষ।

পর্যটন করপোরেশনের কক্সবাজার অঞ্চলের ব্যবস্থাপক মীর মোস্তাফিজুর রহমান বলেন যে, এখানে নাইট ক্লাব ও নাইট মার্কেট তৈরি করার পরিকল্পনা সরকারের আছে।

প্রতি বছর অবকাশ যাপনে কক্সবাজার ভ্রমণে আসেন ১৫ লাখের বেশি ভ্রমণপিপাসু এবং আর সুযোগ-সুবিধার অভাবে দিন দিন কমছে বিদেশি পর্যটক আগমনের সংখ্যা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close