Home Pasmisali দেশে দেশে ধর্ষণের যা শাস্তি

দেশে দেশে ধর্ষণের যা শাস্তি

86
0
প্রতীকী ছবি

আমাদের ভেতর লুকিয়ে থাকা কিংবা বসবাস করা অসভ্য, বর্বর মানুষগুলোকে দ্রুত বিচারের আওতায় না আনলে, আরও নতুন অসভ্য শ্রেণি তৈরি হবে দেশে দেশে। মনুষ্যত্বের পচন ধরেছে তা দ্রুত নিরাময় করা দরকার। আর এই পচনের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করার জন্য ধর্ষকের দ্রুত মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হওয়া উচিত বলে মনে করেন দেশের সব মানুষ। আইন ও আদালতের উপর এমন অবিশ্বাসের কারণ হল অনেক অপরাধীর কাছে জেলখানা অনেক নিরাপদ একটা জায়গা হয়ে গেছে।

সব মানুষই মনে করেন, ঘৃণ্য এই পাপের জন্য মৃত্যুদণ্ডের মত ভালো ঔষধ আর হতে পারে না। এর গুরুত্বপূর্ণ দুটি দিক রয়েছে। এক. বর্তমান অপরাধী নির্মূল করে। দুই. একই অপরাধের জন্য নতুন অপরাধী খুবই কম তৈরি হয়।

বিভিন্ন দেশের ধর্ষণের বিচারের ব্যবস্থা ব্যাপারে আমরা বিবেচনা করতে পারি। যেমন,

* ইরান: এই দেশে ধর্ষককে ফাঁসি, নাহয় সোজাসুজি গুলি করে মৃত্যু নিশ্চিত করে। আর এভাবেই ধর্ষককে এদেশে শাস্তি দেওয়া হয়।

*
উত্তর কোরিয়া: অভিযোগ, গ্রেফতার আর তারপর অভিযোগ প্রমাণ হলে গুলি করে হত্যা করা হয় ধর্ষককে।

* আফগানিস্থা: ধর্ষণ করার প্রমাণ ধরা পড়লে চার দিনের মধ্যে ধর্ষকের মাথায় সোজা গুলি করে মারা হয়।

* চীন: এই দেশে ধর্ষণ প্রমাণ হলেই আর কোনও সাজা নয়, বিশেষ অঙ্গ কর্তন করে সরাসরি মৃত্যুদণ্ড নিশ্চিত করা হয়। অন্য কোন শাস্তি নেই।

* সংযুক্ত আরব আমিরাত: সাত দিনের মধ্যে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয় এই দেশে।

* মঙ্গোলিয়া: ধর্ষিতার পরিবারের হাত দিয়ে ধর্ষককে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়।

* মিশর: ধর্ষককে জনসমক্ষে ফাঁসি দেওয়ার নিয়ম এখানে।

* সৌদি আরব: শুক্রবার জুম্মার নামাজ শেষে জনসমক্ষে শিরশ্ছেদ করা হয় ধর্ষকের।

শব্দটা সবার মুখে মুখে থাকে এখন, অথচ কতটা বীভৎস ও হৃদয়বিদারক এই বিষয়টা। ধর্ষণ যেন মহামারি আকার ধারন করেছে আমাদের দেশে। তাই জেল জরিমানা নয়, দ্রুত কঠোর বিচার ও তা কার্যকর করে এসব ধর্ষকদের মনে আতঙ্ক সৃষ্টি করতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here