web analytics
Others News

দাগনভূঞায় পৌরসভা নির্বাচনে ককটেল-বিস্ফোরণে ৩ জন আহত

নিউজ ডেক্স: দাগনভূঞা পৌরসভা নির্বাচনে ৮নং ওর্য়াড়ের গনিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ককটেল-বিস্ফোরণে ৩ জন আহত-হয়েছেন। এদের মধ্যে একজন পুলিশ একজন আনসার সদস্য ও সতন্ত্র-কাউন্সিলর প্রার্থীদের সমর্থক। এই সময় কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। 

কাউন্সিলর প্রার্থীরা সরকার দলীয় সমর্থিত প্রার্থীর বিরুদ্ধে মারধর করে বাড়ীঘরে-আটক রাখার অভিযোগ করেন। তারা বলেন, রাতে বহিরাগত সন্ত্রাসীরা বাড়ি-ঘরে হামলা-করে বোমা-বিস্ফোরণ করে আতঙ্ক-সৃস্টি করে। দাগনভূঞা পৌরসভায় ২৪ হাজার ২৫৩ জন ভোটার রয়েছে। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১২ হাজার ৫৬৬ জন ও নারী ভোটার ১২ হাজার ৫০৬ জন। 

নির্বাচনে ১৩টি কেন্দ্রে ১৩ জন প্রিজাইডিং অফিসার ও ৭৩ জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার দায়িত্ব পালন করবেন। প্রতি’কেন্দ্রে ২ জন করে মোট ১৪৬ জন পোলিং অফিসার থাকবেন। শুক্রবার (১৫ জানুয়ারি) প্রতিটি ভোট-কক্ষে ১টি করে ৭৩টি ইভিএম মেশিন থাকবে। এছাড়াও প্রতিটি কেন্দ্রে ১টি করে মোট ১৩টি অতিরিক্ত ইভিএম-মেশিন থাকবে। 

মাঠে রয়েছে আওয়ামীলীগ-সমর্থিত মেয়রপ্রার্থী ওমর ফারুক খান, বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী কাজী সাইফুল রহমান স্বপন, জাতীয়-পার্টির বিনোদ বিহারী ভৌমিক ও স্বতন্ত্র প্রার্থী তারেক আজিজ খানসহ ৪ মেয়র প্রার্থী। এরই মধ্যে ৩ নারী ৪ পুরুষ কাউন্সিলর বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায়-নির্বাচিত হয়েছেন। ৫টি ওয়ার্ডে ১৪ জন কাউন্সিলর প্রার্থীর মধ্যে ভোট অনুষ্ঠিত হচ্ছে। 

দাগনভূঞা পৌরসভা-নির্বাচনে ভোট গ্রহণের জন্য ১৩টি কেন্দ্রে নির্বাচনী-সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। শুক্রবার দুপুর আড়াইটার পর থেকে কেন্দ্রে কেন্দ্র পৌঁছে দেয়া হয়েছে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন’সহ (ইভিএম) সকল ধরনের নির্বাচনী-সামগ্রী। 

এরই মধ্যে এ নির্বাচনকে ঘিরে সকল ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন-কমিশন ও স্থানীয় প্রশাসন। দ্বিতীয়-ধাপের পৌর নির্বাচন শনিবার সকাল ৮টা থেকে চলবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। প্রসঙ্গত, এ কেন্দ্রে মোট ভোটার সংখ্যা ১৮৮৫ জন। এতে রয়েছে মোট ৬টি বুথ।  

Related Articles

Back to top button
Close
Close