web analytics
Pasmisali

অ্যাম্বুলেন্সে রোগী নিয়ে ড্রাইভিং শিখলেন ডাক্তার

চট্টগ্রাম বিভাগের বান্দরবান জেলার আলীকদম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গত শনিবার (২২জুন) শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়ায় ডাক্তার দেখাতে নিয়ে যাওয়া হয় আব্দুল মোতালেব নামের এক রোগীকে। পরে শ্বাসকষ্ট অতিরিক্ত হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক আরও উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার জন্য স্বজনদেরকে পরামর্শ দেন। স্বজনরা তাকে আলীকদম উপজেলা থেকে অ্যাম্বুলেন্সে চট্টগ্রাম মেডিকেলে নিয়ে যাওয়ার সময় অ্যাম্বুলেন্স চালকের আসনে বসেন ডা. শহিদুর রহমান নিজেই।

অ্যাম্বুলেন্সের চালক থাকলেও ওই মুমূর্ষু রোগী ও রোগীর সঙ্গে থাকা স্বজনদেরকে নিয়ে ওই চিকিৎসক ড্রাইভিং শিখতে নিজেই গাড়ি চালাতে শুরু করলেন। পরে অবস্থা বেগতিক দেখে রোগীর স্বজনরা ডাক্তারের অদক্ষ গাড়ি ড্রাইভিংএর প্রতিবাদ করে রোগীকে চট্টগ্রাম মেডিকেলে না নিয়ে মাঝ পথে পটিয়ায় নেমে যান রোগী নিয়ে।

রোগীর এক স্বজন মো. পারভেজ বলেন, ‘রোগীকে নিয়ে ডা. শহিদুর রহমান অ্যাম্বুলেন্স চালানো অবস্থায় বার বার গাড়ির স্টার্ট বন্ধ হয়ে যাচ্ছিল এবং গাড়ি চালানোর সময় খানাখন্দ ও স্পিডব্রেকার কোনো কিছুই তোয়াক্কা করেননি ডাক্তার। বেশ কয়েকবার দুর্ঘটনার সম্মুখীন হওয়ায় বারবার গাড়ি চালককে চালাতে দেয়ার অনুরোধ করলে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে চুপ থাকার নির্দেশ দেন তিনি।

পরবর্তীতে ফোন করা হলে অভিযুক্ত আলীকদম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডা. শহিদুর রহমান বলছেন, ‘অ্যাম্বুলেন্স আমি চালাব, নাকি আর কেউ চালাবে সেটি আমি বুঝবো আর আমার ইচ্ছে হয়েছে অ্যাম্বুলেন্স চালাবো তাই আমি চালিয়েছি। এরপর তিনি ফোন কল কেটে দিলেও অনেকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও আর কথা বলা সম্ভব হয়নি তার সঙ্গে।’

বান্দরবানের সিভিল সার্জন ডা. অংশৈ প্রু বলেন, ‘আমি ঢাকায় আছি এই মুহূর্তে তবে বিষয়টি শুনে সাবধান করে দিয়েছি। ভবিষ্যতে এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটলে ব্যবস্থা আমি নিজেই নিব।’

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close